আজ মঙ্গলবার| ২২ জুন, ২০২১| ৮ আষাঢ়, ১৪২৮

সখিপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত যুবকের লাশ এক মাস পর কবর থেকে উত্তোলন!

মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট ২০২০ | ১০:১২ পূর্বাহ্ণ | 2274 বার

সখিপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত যুবকের লাশ এক মাস পর কবর থেকে উত্তোলন!
খুড়ে ফেলা কবর || উপরের নিহত সুমনের ছবি

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার চরসেনসাস ইউনিয়নে দাফনের এক মাস পর এক যুবকের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টায় ইউনিয়নের মাঝের চরের বাসিন্দা সিরাজ মোল্যার ছেলে সুমন মোল্যার লাশটি উদ্ধার করে সখিপুর থানা পুলিশ। এ সময় ভেদরগঞ্জ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা শংকর চন্দ্র বৈদ্য সহ সখিপুর থানার বিভিন্ন পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গত ১৭ জুলাই সখিপুর টু আরশিনগর সড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় সুমন মোল্যার মৃত্যু হয়। নিজের মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মৃত্যু হয়েছে স্বজনদের এমন দাবির প্রেক্ষিতে ঐ সময় কোন প্রকার ময়নাতদন্ত ও মামলা ছাড়াই সুমনের লাশ দাফন করা হয়।

জানাগেছে, গত ১৭ জুলাই ২০২০ শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে সখিপুর থেকে নিজের বাড়ি যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয় সুমন মোল্যা। নিজের মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রন হারিয়ে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ঐ সময় সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় স্বজনদের আবেদনের প্রেক্ষিতে কোন প্রকার ময়নাতদন্ত ও মামলা ছাড়াই সুমন মোল্যার লাশ দাফন করা হয়। কিন্তু ঘটনার একদিন পর স্থানীয় কয়েকজন ব্যাক্তি জানায়, দেলোয়ার ভূইয়া নামে এক সিএনজি চালকের সিএনজির সাথে ধাক্কা খেয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয় সুমন মোল্যা। আর ঘটনা স্থলেই সে মারা যায়। ফলে ঐ সময় পুরো বিষয়টি নিয়ে রহস্য সৃষ্টি হয়।

পরে ঐ সাক্ষী অনুযায়ী ১৩ আগষ্ট ২০২০ নিহত সুমনের মা তাসলিমা বেগম শরীয়তপুর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ঘটনাটি তদন্ত করে সুষ্ঠ বিচারের আবেদন জানায়। ঐ আবেদনের প্রেক্ষিতে সখিপুর থানা পুলিশকে মামলা নিতে আদেশ দেয় আদালত এবং ১৪ আগষ্ট ২০২০ মামলা নেয় সখিপুর থানা পুলিশ। মামলায় সখিপুর ইউনিয়নের বেপারী কান্দির বাসিন্দা রুক্কু ভূইয়ার ছেলে সিএনজি চালক দেলোয়ার ভূইয়া (৫০) কে আসামী করা হয়। মামলার একদিন পর তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

পরে মালার সুষ্ঠ তদন্তের জন্য আদালতের নিকট লাশ কবর থেকে তুলেতে আবেদন জানায় পুলিশ। আদালত লাশটি উদ্ধারের অনুমতি দিলে সোমবার সকালে ভেদরগঞ্জ উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা জনাব শংকর চন্দ্র বৈদ্যের উপস্থিতিতে লাশটি উদ্ধার করে সখিপুর থানা পুলিশ। পরে তা ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

সুমন মোল্যার মা তাসলিমা বেগম বলেন, প্রথমে আমরা জানতে পারি সুমন নিজে নিজেই দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে। পরে স্বাক্ষীর মাধ্যমে জানতে পারি দেলোয়ার নামে এক সিএনজি চালক তাকে মেরেছে। তাই ঐ সিএনজি চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছি।

সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব আসাদুজ্জামান হাওলাদার বলেন, ঘটনাটির প্রেক্ষিতে মামলা দায়েরের পর বিজ্ঞ আদালতের অনুমতিক্রমে লাশটি কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। সুষ্ঠ তদন্তের জন্য লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা
error: কপি করা নিষেধ !!