আজ সোমবার| ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১| ৫ আশ্বিন, ১৪২৮

পারিবারিক দ্বন্ধ, সখিপুরে সালিশে হেরে বাড়ি-ঘরে হামলার অভিযোগ

শুক্রবার, ৩১ জানুয়ারি ২০২০ | ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ | 2125 বার

পারিবারিক দ্বন্ধ, সখিপুরে সালিশে হেরে বাড়ি-ঘরে হামলার অভিযোগ

শরীয়তপুরের সখিপুর থানার দক্ষিন তারাবুনিয়া ইউনিয়নে গ্রাম্য সলিশে হেরে প্রতিবেশীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার দুপুরে দক্ষিন তারাবুনিয়া ইউনিয়নের বকাউল কান্দি গ্রামের বাসিন্দা হারিস সরকারের বাড়িতে তার প্রতিবেশী কুদ্দুস বকাউল ও তার স্বজনরা হামলা করেছে বলে সখিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্থানীয়দের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, দেড় বছর আগে একই গ্রামের বাসিন্দা কুদ্দুস বকাউলের প্রবাসী ছেলে মানিক বকাউলের সাথে হারিস সরকারের মেয়ে জান্নাতের বিয়ে হয়। কয়েকমাস আগে জান্নাতকে আনুষ্ঠানিকভাবে মানিকদের বাড়িতে তোলার কথা ছিল। কিন্তু বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুপক্ষের মধ্যে ঝামেলার এক পর্যায় ডির্ভোসের সিদ্ধান্ত হয়। সে মোতাবেক মঙ্গলবার বিকেলে জান্নাতের পরিবারকে ২লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে ঘটনাটি সমাধান করেন চেয়ারম্যান ও অন্যান্যরা। এর পরের দিন দুপুরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

কিন্তু হারিস সরকারের অভিযোগ, সালিশে হেরেই কুদ্দুস বকাউল ও তার স্বজনরা বাড়িতে হামলা করেছে। হারিস সরকার বলেন, আমার মেয়েকে বিয়ে দেয়ার পর কুদ্দুস বকাউলের টাকা বেড়ে গেছে। টাকার অহংকারে তারা আর আমার মেয়েকে নিবে না। পরে গতকাল ২ লক্ষ ৫০ টাকা আমার মেয়ের দেন মোহর বাবদ তারা পরিশোধ করে দেয়। সালিশে হেরে যাওয়ার লজ্জায় তারা আজকে আমাদের বাড়িতে হামলা করে ঘরের বেড়া, দরজা, শো-কেইস ভাংচুর করে ঐ ২লক্ষ ৫০ হাজার টাকা সহ গরু বিক্রির টাকা ও মোবাইল নিয়ে গেছে। আমরা তাদের বিচার চাই।

জান্নাতের ভাই নাঈম ইসলাম বলেন, তারা আমার বোনকে ডির্ভোস দিয়ে দিছে। এখন বলে, আমরা নাকি বোনকে দিয়ে কাবিনের ব্যবসা করছি। এখন তারা ১০-১৫ জন মিলে আমাদের বাড়িতে হামলা করেছে। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ আমাদের কথা বলে না। সাক্ষীও দিতে চায় না।

কিন্তু কুদ্দুস সরকার বলেন, আমরা তাদের বাড়িতেই যাইনি, হামলা করবো কিভাবে!! আমাদেরকে ফাঁসানোর জন্য তারা নিজেরাই নিজেদের ঘরবাড়ি ভাংচুর করেছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরুদ্দিন দর্জি বলেন, ঘটনা শোনার পর পরই আমি সেখানে গিয়েছি। দু-পক্ষের সাথে আলাপ করে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধান করার চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা
error: কপি করা নিষেধ !!