আজ মঙ্গলবার| ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১| ৬ আশ্বিন, ১৪২৮

শরীয়তপুরে গান বাজিয়ে মেয়েকে হত্যা, ফাঁসির দাবিতে পিতা-মাতার মানববন্ধন

সোমবার, ১৩ জানুয়ারি ২০২০ | ১:২১ অপরাহ্ণ | 1754 বার

শরীয়তপুরে গান বাজিয়ে মেয়েকে হত্যা, ফাঁসির দাবিতে পিতা-মাতার মানববন্ধন

পদ্মা বেষ্টিত চড়াঞ্চল শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাঁচিকাটা ইউনিয়নের জবরদখল গ্রামের গৃহবধূ আকলিমা বেগমের (৩০) হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধ করেছে তার পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা। রবিবার বিকেল ৪ টার দিকে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে তারা। আকলিমার স্বজনদের দাবি, তার স্বামী আল-আমিন সরদারই (৩৫) আকলিমাকে হত্যা করেছে। এসময় মানববন্ধনকারীরা শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপার বরাবর স্বারকলিপি দেয়। মানববন্ধনে নিহতের মা সাহিদা বেগম, বাবা শরীফ সরদার, ভাই সাইফুল ইসলামসহ ইউনিয়নবাসী অংশগ্রহন করে। এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন মা সাহিদা বেগম।

নিহতের স্বজনদের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, ১৩ বছর আগে ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাঁচিকাটা ইউনিয়নের জবরদখল গ্রামের বাসিন্দা গিয়াসউদ্দিন সরদারের ছেলে আল-আমিন সরদারের সঙ্গে একই গ্রামের শরীফ সরদারের মেয়ে আকলিমা বেগম প্রেম করে বিয়ে করেন। তাদের মনি (৬) নামে এক মেয়ে, রিয়াজ (১২) ও মিরাজ (৮) নামে দুইটি ছেলে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য আকলিমাকে নির্যাতন করতো আল-আমিন। আকলিমা নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাবার বাড়ি থেকে ধাপে ধাপে পাঁচ লাখ টাকাও দেয় আল-আমিনের পরিবারকে। নিততের পরিবারের দাবি, আল-আমিন পরকীয়ায় জড়িয়ে যাওয়ার কারনে আকলিমাকে অবহেলা করতো। সর্বশেষ গত ৮ ডিসেম্বর রবিবার রাতে দেড় লাখ টাকা যৌতুকের জন্য আকলিমাকে আবার নির্যাতন করে আল-আমিন। পরে ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেচিঁয়ে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখে। ঘটনার পরেরদিন (৯ ডিসেম্বর) সোমবার দুপুর ১২ টার দিকে সখিপুর থানা পুলিশ আকলিমার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তর জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পরে স্বামী আল-আমিনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ।

কান্নাজড়িত কন্ঠে নিহত আকলিমার মা-বাবা বলেন, আমার মেয়ের যে ময়নাতদন্ত হয়েছে, তা সঠিক হয়নি। আমি পুনরায় ময়নাতদন্ত চাই। যৌতুকের জন্য আমার মেয়েকে হত্যা করেছে আল-আমিন। আমার মেয়ের হত্যাকারির ফাঁসি চাই।

ভাই সাইফুল সরদার বলেন, আমার বোনের হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই আল-আমিন যখন আমার বোনকে নির্যাতন করতো, তখন ঘরের মধ্যে বিকট শব্দ করে সাইন্ড বক্স বাঁজাতো। যাতে করে প্রতিবেশিরা নির্যাতনের শব্দ না পায়। আল-আমিনের ফাঁসি চাই।

  • সখিপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, আকলিমার ময়নাতদন্তে জানাগেছে, তিনি আত্মহত্যা করেছে। তার স্বামী আল-আমিন জেল হাজতে আছে। তবে তার পরিবারের পক্ষ থেকে যেসব অভিযোগ রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  
ফেইসবুক পাতা
error: কপি করা নিষেধ !!